আপনার চুল ও ত্বকের জন্য উপকারী কিছু ঘরোয়া টোটকা , রং খেলতে যাবার আগে অবশ্যই ব্যবহার করুন।

আপনার চুল ও ত্বকের জন্য উপকারী কিছু ঘরোয়া টোটকা , রং খেলতে যাবার আগে অবশ্যই ব্যবহার করুন।

প্রতি বছরের মতো এবছরও দোলযাত্রা এসেই গেলো,দরজায় নক করছে বলাই যায় । অনেকের কাছেই দোল বা আবির খেলা খুব পছন্দের।

আর দোলে আবির মাখব না , রং খেলবো না এতো ভাবাই যায়না। 

আবির, রং  অনেক সময় চামড়ার ক্ষতি করে, কিন্তু কয়েকটা দিকে একটু খেয়াল করলেই ত্বক ও ঠিক থাকে আর চুল এরও কোনো ক্ষতি হয় না।

তাহলে আর টেনশন কিসের?

দেখে নি সেরকমই কিছু সতর্কতা –

  • অবশ্যই কোনো ভেষজ রং এবং আবির ব্যবহার করো।রাসায়নিক কম থাকার জন্য  এগুলো স্কিন এর ক্ষতি করে না বললেই চলে। 

  • রং খেলার আগে কোনো মেকআপ  apply  করা উচিত নয় তবে লিপস্টিক, ওয়াটারপ্রুফ মাস্কারা ইউস করতেই পারো।লিপবাম ও তুমি পছন্দ মতো ইউস করতে পারো।

  • তবে সানস্ক্রিন তোমাকে মাস্ট ইউস করতেই হবে স্কিনের ট্যানিং থেকে বাঁচার জন্যে। ওয়াটারপ্রুফ সানস্ক্রিন SPF 50 বা 60 অর্থাৎ রোদেও যেটা ভালো কাজ করবে।

আপনার চুল ও ত্বকের জন্য উপকারী কিছু ঘরোয়া টোটকা , রং খেলতে যাবার আগে অবশ্যই ব্যবহার করুন।
সৌজন্যে – Google.com

মুখের পাশাপাশি শরীর এর দিকেও যত্ন দেয়া একই রকম গুরুত্বপূর্ণ।

  • খেলতে বেরোনোর আগে সান প্রোটেকশন লোশন সারা শরীরে মেখে নিতে ভুলবে না।  যে কোনো কসমেটিকস এর দোকানে এগুলো তুমি পেয়ে যাবে।

  • তবে কোনো  বডি অয়েল ও ইউস করতে পারো এগুলো হালকাও হয় আর তোমার স্কিনকে রোদ , রং এর ক্ষতির  হাত থেকে বাঁচানোর জন্যও বেশ উপকারী।

তবে তার পর এটাও খেয়াল রাখার বিষয় যে কিভাবে চুল ঠিক রাখবো।

  • আবির এ কিছু রঞ্জক পদার্থ আছে যেগুলো  চুলকে রুক্ষ করে তোলে।তবে তার হাত থেকে বাঁচতে তোমাকে চুলে তেল মাখতেই  হবে।

  • অনেকেই তোমরা চুলে তেল দেয়া পছন্দ করো না, তেল দিয়ে অনেকের অসুবিধাও হয়  কিন্তু যেখানে স্বাস্থ্যের প্রশ্ন সেখানে একটু মানাতেই হবে।

  • তবে তুমি কোনো লাইট অয়েল ও দিতে পারো এর ফলে সব দিক এ ঠিক থাকবে। শুধু চুলই নয় পারলে স্ক্যাল্পেও তেল মাখাতাই বুদ্ধির কাজ হবে।  

তোমার নেলপালিশ পড়ার শখ আছে?

  • হ্যাঁ অবশ্যই নখ ও কিউটিকলকে সুন্দর রাখার জন্য নেলপালিশ ইউস করো। সেটা একটু ডিপ কালার হলে আরো ভালো হয়।

আপনার চুল ও ত্বকের জন্য উপকারী কিছু ঘরোয়া টোটকা , রং খেলতে যাবার আগে অবশ্যই ব্যবহার করুন।
সৌজন্যে -  Google.com
আপনার চুল ও ত্বকের জন্য উপকারী কিছু ঘরোয়া টোটকা , রং খেলতে যাবার আগে অবশ্যই ব্যবহার করুন।
সৌজন্যে – Google.com

এবার আসি কিছু ঘরোয়া টোটকার দিকে

যেটা তোমার ১২ বছরের বেশি হলেই এপ্ল্যাই করতে পারবে- 

  • তোমার স্কিন যদি তৈলাক্ত হয়, স্কিনের উজ্জ্বল ভাব এবং স্বাভাবিক রং ফিরে পেতে পেঁপে, গুঁড়ো দুধ আর কয়েক ফোঁটা লেবুর রস মিশিয়ে মিশ্রণটি  ২০ মিনিট মুখে, হাতে মেখে অপেক্ষা করো। তারপর জল দিয়ে ধুয়ে নাও।

  • আর শুস্ক স্কিন এর জন্য হাফ চটকানো একটি পাকা কলা এবং এক চামচ মধু মিশিয়ে মুখে মাখতে পারো।

  • আর স্ক্রাব এর জন্যে এই মিশ্রণটির সাথে  একটু লবন মিশিয়ে নাও।তারপর নরমাল জল দিয়ে ধুয়ে নাও , ত্বকের স্বাভাবিক উজ্জ্বলতা ফিরে পেতে এই মিশ্রণটা ম্যাজিক এর মতো কাজ করে। 

  • তোমার স্কিন যদি কিছুটা tanned থাকে তার জন্যেও ওষুধ আছে. জাস্ট এক চামচ ময়দা, লেবুর রস আর একটু দুধ এর মিশ্রণ মুখ, হাত এবং ঘাড়ে মেখে ২০ মিনিট অপেক্ষা করো শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত।

  • তারপর সেটাকে স্ক্রাবারএর  মতো মুখে একটু হালটা হাতে ঘষে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলো। রং তোলার জন্যে এবং ট্যান ভাব কাটানোর জন্যে দিনে ২ বার এই মিশ্রণ লাগাতে পারো।ভালো ফল পাবে।

  • মুখে ব্রণ বা acne এর সমস্যা থাকলে ও কোনো চিন্তা নেই, খেলার পর কোনো সফ্ট ক্লিনজার ইউস করো।  রং উঠে  গেলে ক্লিন্ডামাইসিন টাইপ জেল ব্যবহার করুন।

  • এই জেল ইনফেকশন বা ব্রণর হাত থেকে স্কিন কে রক্ষা করবে।যে কোনো ওষুধের  দোকানে এই জেল তোমরা পেয়ে যাবে। কিছুদিন রেটিনয়েড ক্রিম ব্যবহার করা এড়িয়ে চললে ভালো হয়।  

তোমার সেনসিটিভ স্কিন?তুমি এবার ভাবছ  কি ইউস করবে?

চিন্তা নেই তোমার জন্যেও কিছু সহজ সমাধান আছে। 

  • শুধু একচামচ পাতিলেবুর  রস, একটু টকদই আর চন্দন বাটা  বা গুঁড়ো নাও সেটাকে একসাথে মিশিয়ে মুখে মেখে নাও।
  • আরো ভালো  ফল পাওয়ার জন্যে এর মধ্যে একটু ময়দা আর হলুদগুঁড়োও মিশিয়ে নিতে পারো। 

  • রং তোলার জন্য  মুখে  অলিভ অয়েল একটু তুলোতে দিয়ে প্রয়োগ করতে পারো।  কয়েক মিনিট পর ঠান্ডা জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেললেই আর চিন্তা নেই।   

এতো হলো ওয়াশ এবার আসি ময়েশ্চার এর দিকে।

  • এর জন্য কোন অয়েলি ময়েশ্চারাইজার বা দুধ সারা শরীরে মেখে তারপর স্নান করো।

  • এর ফলে শরীরের স্বাভাবিক রং ফিরে আসবে অতিরিক্ত কোনো রকম ঘসাঘসি না করেই।তবে এক্ষেত্রে কোনো সফ্ট ওয়াশিং ক্রিম জেল ও ইউস করতে পারো।

  • আর স্কিন যদি সেনসিটিভ হয় তাহলে লুফা ব্যবহার না করাই ভালো। 

  • তবে একটা কথা মনে রাখতে হবে।  হোলি খেলার একসপ্তাহ আগে এবং পরে ব্লিচ ও ওয়াক্সিং না করে ভালো। এর ফলে স্কিন এর লোমকূপ গুলো মুক্ত হয়ে পরে।

  • রং খেলার সময় সেগুলো স্কিন এ ডাইরেক্ট কাজ করে স্কিন কে  আরো রুক্ষ করে তোলে। অনেক সময় নিম্ন স্তরেও রং এর কণা ঢুকে ইনফেকশনও হয়ে যেতে পারে।

  • আর এসব থেকে বাঁচতে আমন্ড অয়েল খুব কাজের। দোল খেলার আগে মুখে একটু  তেল মেখে নিলে তারপর ধোয়ার সময় জাস্ট ওয়াস করে নিলে কোনো সমস্যায় নেই।

  •  বেসন, বেবি অয়েল আর হলুদের মিশ্রণ ও খেলার পর ফেস ওয়াস হিসাবে ব্যবহার করতে পারো, খুব এফেক্টিভ । 

 আপনার চুল ও ত্বকের জন্য উপকারী কিছু ঘরোয়া টোটকা , রং খেলতে যাবার আগে অবশ্যই ব্যবহার করুন।
আপনার চুল ও ত্বকের জন্য উপকারী কিছু ঘরোয়া টোটকা , রং খেলতে যাবার আগে অবশ্যই ব্যবহার করুন।
সৌজন্যে – Google.com

হোলি খেলার আগে এই ভেষজ তেল গুলি মেখে নিলে এটি  চুল কে সবরকম ভাবে রক্ষা  করে।

  • আমলা, শিকাকাই তেলের কথা তো তোমরা নিশ্চই শুনেছ।  স্কিন এর পাশাপাশি চুল এর দিকেও তো নজর দিতে হবে। 

  • এই ভেষজ তেল গুলি চুল কে রুক্ষ বা শুস্ক হতে দেয় না।  খেলা হবার পর যত শীঘ্র সম্ভব কোনো শ্যাম্পু দিয়ে চুল পরিষ্কার করে নেওয়া ভালো।  

  • তবে শ্যাম্পুর পরে ডিপ কন্ডিশনিং করতে কিন্তু ভুলে যেও  না। কন্ডিশনিং চুলের ময়েশ্চারাইজার ধরে রাখে।

  • যদি দোল খেলার পর ১- ২ দিন পরেও তোমার মুখে রং থেকে যায় তাহলে কোনো কসমেটিক প্রোডাক্ট ইউস না করে ভালো

  • আর এই সময় টায় ফেসিয়াল একবারে বর্জনীয় অন্তত যে কদিন রং থাকছে।

  • রং ভিতরে ঢুকে গেলে তা স্কিন এর ক্ষতি করতে পারে।  রং সম্পূর্ণ উঠে গেলে আবার সব কিছু  ব্যবহার করতে পারো।

আপনার চুল ও ত্বকের জন্য উপকারী কিছু ঘরোয়া টোটকা , রং খেলতে যাবার আগে অবশ্যই ব্যবহার করুন।
সৌজন্যে -  Google.com
আপনার চুল ও ত্বকের জন্য উপকারী কিছু ঘরোয়া টোটকা , রং খেলতে যাবার আগে অবশ্যই ব্যবহার করুন।
সৌজন্যে – Google.com

রং এর উৎসব হোক আনন্দমুখর। সুস্থ থাকুন , আর আনন্দে মেতে উঠুন।

সবাইকে দোল পূর্ণিমার শুভেচ্ছা।  রঙিন হোক সবার জীবন।